রবিবার,   ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ,   দুপুর ১:৪২,  ৮ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং
Home তথ্যপ্রযুক্তি আগামীতে ক্ষমতায় এলে 5G চালু : জয়

।। জবাবদিহি প্রতিবেদক।।

দেশে পঞ্চম প্রজন্মের তারবিহীন সুপার স্পিড যোগাযোগ পদ্ধতি বা ফাইভজি ইন্টারনেট সেবা নিশ্চিত করা হবে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগ আবার ক্ষমতায় এলে ফাইভজি সেবা নিশ্চিত করা হবে। এটা আমি কথা দিচ্ছি। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ প্রথম শ্রেণির দেশগুলোর কাতারেই থাকবে।

বুধবার বেলা ১১টার দিকে আনুষ্ঠানিকভাবে ফাইভ-জির পরীক্ষামূলক সংযোগ চালুর অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। রাজধানীর স্থানীয় একটি হোটেলে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

জয় বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে টু‌-জি ইন্টারনেট চালু ক‌রে। এর প‌রের বার এসে থ্রি‌-জি চালু ক‌রে। আর এবার ক্ষমতায় এ‌সে ফোর-‌জি চালু করে‌ছে। আগামীতে ক্ষমতায় এসে ফাইভ-‌জি চালু কর‌বে। আমাদের সঠিক পরিকল্পনা ও আওয়ামী লীগ সরকারের সফল পলিসির কারণে এটি সম্ভব হয়েছে।

কম দামে ইন্টারনেট সেবা দেয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে অন্যতম জানিয়ে তিনি বলেন, গত ৫ থেকে ৬ বছরে এদেশের ইন্টারনেট খরচ ৯০ শতাংশ কমে এসেছে। এক সময় ফোরজি স্বপ্ন ছিল কিন্তু এটি এখন স্বপ্ন নয়, বাস্তবতা। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রতিশ্রুতি আমরা পূরণ করে যাচ্ছি। এটি আমাদের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি ছিল।

প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি–বিষয়ক উপদেষ্টা বলেন, বাংলাদেশ তথ্য প্রযুক্তিতে বিস্ময়কর উত্থান হয়েছে মাত্র কয়েক বছরেই। বাংলাদেশ বিশ্বের মধ্যে অন্যতম দেশ যারা কম দামে ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছে। বাংলাদেশ এখন দেশের প্রয়োজন মিটিয়ে, দেশের বাইরেও ইন্টারনেট সেবা দেয়ার সক্ষমতা আছে।

জয় বলেন, ১০ বছর আগে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার পরিকল্পনা করেছিল বর্তমান সরকার। এতে নানা কর্মসূচিও হাতে নেয়া হয়েছিল। ফলে এ খাতে একের পর এক সাফল্য এসেছে।

সরকারের সহযোগিতায় মোবাইল অপারেটর রবিকে সঙ্গে নিয়ে এই ফাইভ-জি সামিটের আয়োজন করে চীনের টেলিকমিউনিকেশন এবং প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে। ফাইভ-জির পরীক্ষা চালাতে হুয়াওয়েকে এক সপ্তাহের জন্য স্পেকট্রাম বরাদ্দ দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রন কমিশন-বিটিআরসি।

পরীক্ষামূলকভাবে ফাইভ-জি চালু হলেও এখনই এর সেবা মিলবে না ভোক্তা পর্যায়ে। এই সংযোগ শুধু ফাইভ-জি কার্যক্রমের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সরকারি-বেসরকারি সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যবহার করতে পারবে।

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব শ্যামসুন্দর সিকদার, রবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাহতাব উদ্দিন আহমেদ, হুয়াওয়ের সাউথইস্ট এশিয়া অঞ্চলের প্রেসিডেন্ট জেমস উ এবং হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের সিইও ঝ্যাং জেং জুন।

ও/র

Leave a Reply